ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ আষাঢ় ১৪২৬, ২০ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

সুন্দর ঈদের জন্য ১০ পরামর্শ

স্বপ্নীল মাহফুজ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-০৪ ২:২২:৫২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৬-০৪ ৪:৫৪:৪৫ পিএম
প্রতীকী ছবি
Walton AC 10% Discount

স্বপ্নীল মাহফুজ : একমাস সিয়াম সাধনার পর মুসলিমদের জন্য আসে খুশির ঈদ। শেষ রোজার পর সন্ধ্যায় আকাশে খুশির বার্তাবাহক চাঁদ দেখা দিলে শিশু থেকে বুড়ো সকলের মনে আনন্দের আমেজ সৃষ্টি হয়। ঈদ মানে খুশি এবং সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা খুশির মাত্রাকে বহুগুণ বাড়িয়ে দিতে পারে। আপনার ঈদকে সুন্দর করে তুলতে ১০ পরামর্শ দেওয়া হলো।

* তাকবির পড়ুন
রমজানের শেষদিনের মাগরিব থেকে ঈদের নামাজ পর্যন্ত যত বেশি সম্ভব তাকবির (আল্লাহু আকবর) পড়ুন। গাড়িতে-শপিং মলে-বাড়িতে সবখানে তাকবির পড়ুন। এ সুন্নাহকে পুনরুজ্জীবিত করুন এবং ইসলামের প্রকৃত মহত্ত্ব অনুভব করুন।

* ঈদের সাজসজ্জা প্রস্তুত রাখুন
আশা করি আপনি ইতোমধ্যে ঈদের পোশাক-পরিচ্ছদ বা সাজসজ্জা কিনেছেন। না কিনলেও মন খারাপ করবেন না, কারণ ঈদের জন্য নতুন সাজসজ্জা কেনা ফরজ নয়- এক্ষেত্রে আপনার ওয়ারড্রোব থেকে সবচেয়ে ভালো সাজসজ্জা বেছে নিন এবং ঈদের পূর্বরাতে নতুন সাজসজ্জা কিনতে নিজেকে চাপের মধ্যে রাখার প্রয়োজন নেই। ঈদের পূর্বরাতে প্রয়োজনীয় সকল সাজসজ্জা একটি নির্দিষ্ট স্থানে রাখুন।

* ঈদের নামাজের পূর্বে সুন্নাহ মেনে চলুন
ঈদের দিনের শুরুতে ঈদের নামাজের পূর্বে এ কাজগুলো করা সুন্নাহ-
* গোসল করা
* যথাসাধ্য ভালো পোশাক পরা
* সুগন্ধি ব্যবহার করা (পুরুষদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য)
* ঈদের নামাজের পূর্বে মিষ্টি খাবার খাওয়া, বিশেষ করে খেজুর
* ঈদের নামাজ পড়তে যাওয়ার সময় ঈদ তাকবির পড়া।
* দোয়া করুন
এ আশীর্বাদের দিনে দোয়া করুন যেন আল্লাহ আপনার সকল ভালো কাজ কবুল করেন এবং আপনাকে আরো একটি রমজান দেখার সুযোগ দেন। খাবার, পোশাক, পরিবার/বন্ধুবান্ধব ও নিরাপত্তার জন্য শুকরিয়া আদায় করুন। নির্যাতিত মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য দোয়া করতেও ভুলবেন না, উদাহরণস্বরূপ- ফিলিস্তিনের অধিবাসী ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা দুর্ভোগে ভোগা মুসলিম উম্মাহ।

* ভিন্নপথে মসজিদ থেকে ফিরুন
একটি হাদিস থেকে জানা যায় যে, নবী (সা) ঈদের নামাজ পড়ে ভিন্ন পথে ঘরে ফিরতেন। পথের পরিবর্তনে আপনি বিভিন্ন লোকজনের সঙ্গে সালাম বিনিময়ের সুযোগ পান। এর অন্য একটি মানেও রয়েছে- ঈদের নামাজ পড়ে ভিন্নপথ দিয়ে ঘরে ফেরার অর্থ হলো আরো পরিবর্তিত ও উত্তম ব্যক্তি হিসেবে ঘরে প্রত্যাবর্তন করা, ইনশাআল্লাহ।

* কাজকে ছুটি দিন
হ্যাঁ, আমি এখানে কাজপাগল মানুষদের কথা বলছি। কিছু লোক সবসময় কাজে মগ্ন থাকতে চান, তাদের ধারণা যেন এমন- একটা দিন কাজ না করলে আমার ক্যারিয়ার হুমকির মুখে পড়বে। আসলে ব্যাপারটা এমন নয়, বরং ঈদ উদযাপনে মনের মধ্যে প্রশান্তির ধারা বইতে শুরু করে, যা ক্যারিয়ারকে আরো উজ্জ্বল করতে সহায়তা করে। ঈদ মানে খুশি এবং এটি হলো আল্লাহর নেয়ামত, তাই সমস্ত মানসিক চাপ থেকে মুক্ত হয়ে একে উদযাপন করা উচিত।

* প্রতিবেশী, আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবকে দেখতে যান
এটি হলো ঈদের একটি চমৎকার অংশ। দেখা করতে যাওয়ার পূর্বে কল করুন, কারণ যার কাছে যাবেন তিনি তিনি ঘরে নাও থাকতে পারেন অথবা ঘুমে থাকতে পারেন। উপহার নিয়ে যান (ছোট হলেও সমস্যা নেই), বিশেষ করে শিশুদের জন্য। তাদেরকেও আপনার বাড়িতে আমন্ত্রণ জানান- আপনি তাদের আতিথ্য গ্রহণ করেছেন, এবার আপনার আতিথ্য দেয়ার পালা। সম্প্রতি যেসব ভাঙা সম্পর্ক জোড়া লেগেছে তা আরো মজবুত করার একটি চমৎকার সুযোগ হলো ঈদ। দূরের বা প্রবাসী আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবকে ভিডিও অ্যাপসের মাধ্যমে ঈদ মোবারক জানাতে পারেন।

* পরিমিত পরিমাণে খান
ঈদের দিন এ বিষয়টিকে অবহেলা করা উচিত নয়। অনেকে বেশি খাবার খেয়ে পেটের সমস্যায় ভুগে থাকেন, যার ফলে তাদের ঈদের আনন্দ মাটি হয়ে যায়। আমরা জানি যে এ দিনটাতে খাবার খাওয়ার পরিমাণ সীমিত রাখা কঠিন, কিন্তু পেটের ভেতর অনাকাঙ্ক্ষিত অনুভূতি এড়াতে বেশি খাবার না খেতে যতটা সম্ভব চেষ্টা করতে হবে। ঈদের দিন থেকেই স্বাস্থ্যকর ডায়েটে সম্পৃক্ত থাকলে স্বাস্থ্য বিপর্যয়ের আশঙ্কা কমে যায়।

* ভালো কাজ করুন
ঈদের দিন থেকেই ভালো কাজ করা অতি গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি নিশ্চিত করে যে আপনি রমজানের পরও ভালো কাজ করছেন, যেমন- ঠিক সময়ে নামাজ পড়া, হিজাব পরা ও কিছু পৃষ্ঠা কোরআন তেলাওয়াত করা। এ কাজগুলোকে প্রতিদিনকার অভ্যাসে পরিণত করতে ঈদের দিন থেকেই এসবে সম্পৃক্ত হওয়া উচিত। ঈদের প্রথমদিন থেকেই এসব কাজ না করলে ঈদের দ্বিতীয় বা তৃতীয় দিন থেকে এগুলো করা কঠিন হয়ে পড়ে।

* উপহার দিন
পরিবার ও বন্ধুবান্ধবকে উপহার দিন। এটি হতে পারে ছোট পারফিউম থেকে প্রয়োজনীয় গৃহস্থালী আইটেম। পরিবার বা বন্ধুবান্ধবের কাছে বিরক্তিকর ই-কার্ডের পরিবর্তে হাতে লিখা ঈদ কার্ড পাঠান।

আপনার ঈদ আনন্দময় হোক। ঈদ মোবারক।

তথ্যসূত্র : প্রোডাক্টিভ মুসলিম ডটকম



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৪ জুন ২০১৯/ফিরোজ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge