ঢাকা, বুধবার, ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৩ জুন ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ধামইরহাটে হাট-বাজারে ভিড়: দেদারছে চলছে কেনাবেচা

অরিন্দম মাহমু : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৪-০৫ ৭:৩০:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৪-০৫ ৭:৩০:৪০ পিএম

জনগণকে সামাজিক দূরত্ত্ব রাখা এবং ঘরে থাকার বারবার আহ্বান এবং নানা ব্যবস্থার পরও সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নওগাাঁর ধামইরহাটে চলছে জমজমাট হাট-বাজার, দেদারসে কেনাবেচা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নওগাঁর ধামইরহাট উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাধারণ মানুষ নিত্য প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করার জন্য দলবেঁধে ছুটে আসছেন এলাকায় সপ্তাহের একমাত্র হাটের দিন, রোববার ধামইরহাটের হাটে। সেখানে কাঁচাবাজারের পাশাপাশি, পানসুপারি, লোহার তৈরি দা, কোদাল, হাসোয়া বটি এবং কাপোড়ের দোকান বসেছে।

অন্যদিকে ৪ এপ্রিল সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসন এবং ধামইরহাট পৌরসভার পক্ষ থেকে মাইকে জানানো হয়, সকলের কল্যাণার্থে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধের লক্ষ্যে বিকেল ৫ টার পর থেকে প্রতিদিন পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ঔষধের দোকান ব্যতিত ধামইরহাটের হাট, কাঁচামালসহ সকল প্রকার দোকান বন্ধ থাকবে। নির্দেশ অমান্যকারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হলেও প্রশাসনের নাকের ডগায় জনসমাগম ঘটিয়ে ধামইরহাটের হাট-বাজারে দেদারছে চলছে কেনাকাটা।

হাটে বাজার করতে আসা যুবনেতা আবু ইউসুফ বলেন, পৌরসভার মাইকে ঘোষণা অনুযায়ী ওষুধ ছাড়া হাট-বাজারসহ সকল পণ্যের দোকান বন্ধ রাখার ঘোষণা দিলেও অজ্ঞাত কারণে আজকের হাটে যেভাবে জনসমাগম ঘটেছে, তাতে করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণ করলে এর দায়দায়িত্ব কে নেবেন?

এ ব্যাপারে ধামইরহাট পৌর মেয়র আমিনুর রহমানের মোবাইলে চেষ্টা করেওন যোগাযোগ সম্ভব হয়নি।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গণপতি রায় বলেন, ‘ওষুধ ও কাঁচাবাজার ছাড়া সকল প্রকার দোকানপাট বন্ধ রাখা এবং জনসমাগম যেন না ঘটে, তার জন্য আমরা নির্দেশনা দিয়েছি। হাটে কোন গরু, ছাগলের দোকান নয়, শুধু কাঁচা বাজার দোকান বসার অনুমতি দিয়েছি। সেখানে উপজেলা প্রশাসন এবং পৌরসভার লোকজন নিয়মিত মনিটরিং করছে। ’


নওগাঁ/অরিন্দম মাহমুদ/সাজেদ

       
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : নওগাঁ, রাজশাহী বিভাগ