ঢাকা     শনিবার   ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ২১ ১৪২৯

পূজামণ্ডপে ফুটে উঠেছে মসজিদ-মেট্রোরেল-পদ্মা সেতু

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৩৭, ২৫ জানুয়ারি ২০২৩  
পূজামণ্ডপে ফুটে উঠেছে মসজিদ-মেট্রোরেল-পদ্মা সেতু

সংসদ ভবন, পদ্মা সেতু, মেট্রোরেল, বঙ্গবন্ধু টানেল, পারমাণবিক কেন্দ্র, আশ্রয়ণ প্রকল্প, মডেল মসজিদ— বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের স্থাপনা একই জায়গায়। শিল্পীর নিখুঁত কারুকাজ আর রঙ-তুলির আঁচড়ে সুন্দরভাবে ফুটে উঠেছে একেকটি শিল্পকর্ম। যেন ছোট্ট পরিসরে এক টুকরো স্বপ্নের বাংলাদেশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় ব্যতিক্রম এ পূজামণ্ডপ তৈরি করেছে স্থানীয় অরুণ সংঘ। পৌরশহরের রাধানগরস্থ একটি বিদ্যালয় চত্বরে এই পূজামণ্ডপের নাম দিয়েছে ‘সমৃদ্ধ বাংলাদেশ’। ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের পাশাপাশি জনগণের সামনে বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরা এবং জ্ঞানের পরিধি বাড়ানো-ই তাদের উদ্দেশ্য বলে জানা গেছে।  

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সরস্বতী পূজা। পূজা উপলক্ষে থাকছে ধর্মীয় আলোচনা, ব্রাহ্মণ সংবর্ধনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

বুধবার রাধানগরে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের গেটে পূর্ব-পশ্চিমে প্রায় ১০০ ফুট লম্বা পদ্মা সেতুর নমুনা। সম্পূর্ণ ককশিট দিয়ে সেতুর অবিকল নকশা নির্মাণ করা হয়েছে। সেতুর ভেতরে রয়েছে ট্রেন। কারিগরেরা শেষ মুহূর্তের সাজসজ্জার কাজে ব্যস্ত। বিদ্যালয়ের ভেতরে একপাশে মেট্রোরেল, আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরের আদলে কয়েকটি ঘর। বঙ্গবন্ধু টানেল, রূপপুর পারমাণবিক কেন্দ্র। একপাশে সংসদ ভবন, এখানেই হবে পূজার আনুষ্ঠানিকতা। 

পূজামণ্ডপ হলেও এখানে শোভা পাচ্ছে মডেল মসজিদের একটি নমুনা। শিল্পীরা ককশিট, রঙ আর অন্যান্য সরঞ্জাম দিয়ে প্রতিটি নকশা ফুটিয়ে তুলছেন নিখুঁতভাবে। এরিমধ্যে দর্শনার্থীদের দৃষ্টি কেড়েছে ব্যতিক্রম এই পূজামণ্ডপ। 

কথা হয় পূজামণ্ডপের কারিগর শিল্পী শাহাদাত হোসেনের সাথে। তার বাড়ি কুমিল্লার লাকসাম। তিনি বলেন, এক মাস ধরে দুজন শ্রমিক নিয়ে নকশা তৈরিতে কাজ করছেন। তবে এক সপ্তাহ ধরে ৭ জন নিয়ে কাজ করছেন।

অরুণ সংঘের সভাপতি বিশ্বজিত পাল বাবু বলেন, পূজার ধর্মীয় রীতি স্বাভাবিক রেখে মানুষের সামনে ভিন্ন কিছু উপস্থাপন করতে আমাদের এই আয়োজন। এখানে আমরা দেশের উল্লেখযোগ্য উন্নয়নগুলো উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছি।

মাইনুদ্দীন/এনএইচ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়