RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ৩১ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৬ ১৪২৭ ||  ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

একজন ক্রিকেটারের স্বপ্ন একটি হুইলচেয়ার

রাহুল রায় || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৩৬, ১ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১১:৫২, ১ অক্টোবর ২০২০
একজন ক্রিকেটারের স্বপ্ন একটি হুইলচেয়ার

একজন ক্রিকেটারের স্বপ্ন হওয়ার কথা দামি কোনো ব্যাট, প্যাড কিংবা গ্লাভস। কিন্তু বাংলাদেশ হুইলচেয়ার ক্রিকেট টিমের খেলোয়াড় মো. দেলোয়ার হোসেন এত কিছু চাননি কখনোই, তাঁর এখন স্বপ্ন শুধুই একটি হুইলচেয়ার। যেই চেয়ার দিয়ে তিনি বাংলাদেশের হয়ে ক্রিকেট মাঠ দাপিয়ে বেড়াতে চান।

নড়াইলে বেড়ে ওঠা দেলোয়ারের খেলাধুলার প্রতি ভালোবাসা ছোটবেলা থেকেই। আর দশটা গ্রামের ছেলের মতো তিনিও ফুটবল, ক্রিকেট মাঠে দৌড়ে বেড়িয়েছেন। কিন্তু ১৭ বছর বয়সে হঠাৎ করেই পায়ের অসুখে পড়ে হাঁটার ক্ষমতা হারান। সেই থেকেই সঙ্গী হুইলচেয়ার। তবে হুইলচেয়ারে বসেও খেলার প্রতি ভালোবাসা কমেনি একবিন্দু। পায়ের শক্তি যতটা হারিয়েছেন, দু’হাতে ক্রিকেট ব্যাটটা আরও শক্ত করে ধরেছেন। খেলতে খেলতে পাড়ি দিয়েছেন এক বিশাল পথ। 

গত বছর ন্যাশনাল হুইলচেয়ার ক্রিকেট টুর্নামেন্টের চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল তার দল ঢাকা জায়েন্টস। তবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর দেলোয়ারদের খোঁজ ক’জন রাখেন। এমনকি ঢাকায় এসে ম্যাচ খেলার জন্য বাস ভাড়া পেতেন মাত্র একহাজার টাকা। কিন্তু ঢাকা শহরে হুইলচেয়ার নিয়ে দেলোয়াররা বাসে উঠতে পারেন কি-না তা কি আমরা কখনও বোঝার চেষ্টা করি? 

তাই স্বপ্নের ঝুলিতে অভিমান ভর্তি করে নিয়ে ফিরে গেছেন নড়াইলে। নড়াইলে ছোট একটি দোকান দিয়েছেন জীবিকার্জনের জন্য। তবে এখনও সুযোগ পেলেই মাঠে নেমে যান। এখনও বিশ্বাস করেন কালো মেঘে ছেঁয়ে থাকা সূর্য একদিন বেড়িয়ে আসবেই। স্বপ্ন দেখেন জাতীয় হুইলচেয়ার দলের হয়ে মাঠে নামার। 

দেলোয়ার বলেন, ‘২০১২ সাল থেকে ৪-৫টা হুইলচেয়ার ব্যবহার করেছি আমি। তবে সবগুলোই ছিল পুরনো। কেও মারা গেলে তার হুইলচেয়ার এনে ঠিকঠাক করে ব্যবহার করতাম। এখন যেটা ব্যবহার করি, সেটাও প্রায় নষ্ট হয়ে গেছে। এখন আমি আর কী নিয়ে থাকব? একটা স্পোর্টিং হুইলচেয়ার আমার কাছে স্বপ্নের মতো। অনেকেই আশ্বাস দেন কিনে দেওয়ার, কিন্তু সেগুলো শুধুই আশ্বাস।’

স্পোর্টিং হুইলচেয়ার তো দূরে থাক, এখন একটি সাধারণ হুইলচেয়ারও দেলোয়ারের কাছে স্বপ্নের মতো। বর্তমান হুইলচেয়ারটি নষ্ট হয়ে গেলে তিনি কী করবেন জানেন না। এরমাঝে এখন তিনি ঢাকায় পায়ের চিকিৎসা করাতে এসেও পড়েছেন আর্থিক সংকটে। সবমিলিয়ে এই মুহূর্তে দেলোয়ার যেন এক অন্ধকারের পথযাত্রী। 

তবে, আমরা চাইলেই হয়তো সেই পথে আলো জ্বেলে দিতে পারি। দেলোয়ারের স্বপ্নের হুইলচেয়ার কী সত্যিই খুব বেশি কিছু? 

লেখক: শিক্ষার্থী, অর্থনীতি বিভাগ, স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়।

ঢাকা/মাহি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়