Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৩ জুন ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪২৮ ||  ০১ জিলক্বদ ১৪৪২

ঈদের দিনে বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে মানুষের ঢল

নুরুজ্জামান তানিম || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:১৫, ১৪ মে ২০২১   আপডেট: ১৮:১৮, ১৪ মে ২০২১
ঈদের দিনে বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে মানুষের ঢল

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যেই পালিত হচ্ছে মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। গতবারের মতো এবারও করোনাভাইরাসের ছোঁবলে ঈদ আনন্দ যেন ভেস্তে গেছে। ঈদ উদযাপনের অন্যতম অনুষঙ্গ রাজধানীর বিনোদনকেন্দ্রগুলো গতবছরের মতো এবারও বন্ধ আছে। তবে কবর জিয়ারতের জন্য খোলা রাখা রাজধানীর মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধ হাজারো দর্শনার্থীর পদচারণায় মুখরিত।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সরকার বিনোদন কেন্দ্রগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এবার বাসায় থেকে ঈদের আনন্দ উদযাপনের আহ্বান জানিয়েছে সরকার। তবে বিনোদনকেন্দ্রগুলো বন্ধ থাকায় উৎসব ও আনন্দে কিছুটা ঘাটতি পড়েছে বলে মনে করছেন রাজধানীবাসী।

শুক্রবার (১৪ মে) দুপুরে জাতীয় জাদুঘর, স্বাধীনতা জাদুঘর, জাতীয় চিড়িয়াখানা, ওয়ান্ডার ল্যান্ড, বিমান জাদুঘর, ওসমানী উদ্যান, রমনা পার্কসহ সিটি করপোরেশনের অন্যান্য পার্কও বন্ধ আছে। এছাড়া, শিশুপার্ক সংস্কারের জন্য কয়েক বছর ধরে বন্ধ রাখা হয়েছে।

প্রতি বছর ঈদের ছুটির দিনগুলোতে রাজধানীর বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা যেত৷ কিন্তু এ বছর করোনা মহামারির কারণে সে চিত্র আর নেই। তবে, অনেক দর্শনার্থী ঈদ আনন্দ উপভোগ করতে বিনোদনকেন্দ্রগুলোর সামনে এসে ভিড় করছেন। পরে হতাশ হয়ে ফিরছেন তারা।

ঈদের দিন দুপুরে রায়েরবাগ থেকে তিন বছরে শিশু আদনানকে সঙ্গে নিয়ে সস্ত্রীক শাহাবাগের শিশুপার্ক ঘুরতে আসেন আদিল আহমেদ। ভুলেই গিয়েছিলেন যে, সংস্কারের জন্য কয়েক বছর ধরে শিশুপার্ক বন্ধ আছে। ফলে নগরীর অন্যান্য বিনোদনকেন্দ্র খুঁজতে বের হয়েছে ছোট এ পরিবারটি।

এ বিষয়ে জানতে আদিল আহমেদ বলেন, ‘লকডাউনে সবকিছুই বন্ধ। ভেবেছিলাম ঈদের কারণে বিনোদনকেন্দ্র খুলতে পারে। মনেই ছিল না যে, সংস্কারের জন্য কয়েক বছর ধরে শিশুপার্কটি বন্ধ আছে। তাই ফিরে যাচ্ছি। বাচ্চাকে একটু আনন্দ দিতেই বের হয়েছি।’

রামপুরা থেকে সদ্য বিবাহিত স্ত্রীকে নিয়ে জাতীয় জাদুঘর দেখতে এসেছেন সেলিম খান। জাদুঘর বন্ধ থাকায় ফিরে যাচ্ছিলেন তারা। সেলিম খান এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘স্ত্রীকে নিয়ে নিয়ে জাদুঘরে ঘুরতে এসেছিলাম। এসে দেখি, জাদুঘর বন্ধ। তাই, বাসায় ফিরে যাচ্ছি।’

জাতীয় চিড়িয়াখানা দেখতে আসা মিরপুরের বাসিন্দা জাহানারা বেগম বলেন, ‘লকডাউনের কারেণে চিড়িয়াখানা বন্ধ, সেটা আমি জানি। তবে ছেলে ও মেয়ে বায়না ধরেছে ঘুরতে নিয়ে যেতে। তাই, তাদের মন রক্ষার্থে চিড়িয়াখানায় নিয়ে এসেছি। এখন ভাবছি, ছেলেমেয়েকে নিয়ে হাতিরঝিলে যাব।’

ঢাকা/এনটি/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়