ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

যা দেশে রেখে পাকিস্তান গেছেন মাহমুদউল্লাহরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-২৩ ৭:২৪:০৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-২৩ ৭:৩৪:২৯ পিএম

ক্রিকেটের সিরিজ। সিরিজ শুরুর আগের দিন অধিনায়কের আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে ক্রিকেট নিয়েই কথা হওয়ার কথা। কিন্তু সংবাদ সম্মেলনের শুরুটাই হলো মাঠের বাইরের বিষয় দিয়ে- নিরাপত্তা। যে বিষয়টি ঘুরে-ফিরে এলো পুরো সংবাদ সম্মেলনজুড়ে। বাংলাদেশের পাকিস্তান সফরে সবচেয়ে বেশি আলোচিত বিষয় যে এটিই!

নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কায় অনেকটা সময় ঝুলে থাকার পর চূড়ান্ত হয় বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর। তিন দফায় তিনবার পাকিস্তান সফর করবে বাংলাদেশ দল। প্রথম দফায় তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে বুধবার রাতে লাহোরে পৌঁছান মাহমুদউল্লাহ, তামিম ইকবালরা।

বিমানবন্দর থেকে কড়া নিরাপত্তায় বুলেট প্রুফ বাসে বাংলাদেশ দলকে নিয়ে যাওয়া হয় টিম হোটেলে। সেখান থেকে আজ দুপুরে দলকে একইভাবে নেওয়া হয় লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে। পাকিস্তানে প্রায় সব সময়ই দলকে থাকতে হবে কঠোর নিরাপত্তাবলয়ের মধ্যে। এই অবস্থায় মাঠের ক্রিকেটে পুরোপুরি মনোযোগ দেওয়া কঠিন।

বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ অবশ্য বলছেন, নিরাপত্তা নিয়ে তাদের কোনো ভাবনা নেই। যদি কোনো ভাবনা থাকেও, সেটা তারা বিমানে ওঠার আগেই দেশে রেখে গেছেন। সেখানে মাঠের ক্রিকেটে কীভাবে ভালো করা যায়, সেটা নিয়েই তারা শুধু ভাবছেন।

আজ সিরিজপূর্ব সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে মাহমুদউল্লাহর কাছে এক সাংবাদিকের প্রশ্ন ছিল- এমন নিরাপত্তার অধীনে কখনো খেলেননি, কাল প্রথম বল খেলার সময় নিরাপত্তার ব্যাপারটা মাথায় থাকবে কি না? মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘না, একদমই না। আমরা এটা বাংলাদেশেই রেখে এসেছি, যখন আমরা প্লেনে উঠেছি। আমরা পাকিস্তানে মাঠের ক্রিকেটে ভালো করার চিন্তা করছি। আমরা ভালো একটা শো উপহার দিতে চাই।’

পাকিস্তানে ক্রিকেটারদের সব সময় থাকতে হবে একটা বদ্ধ পরিবেশে, অনেকটা ‘বন্দিদশা’ অবস্থায়। দেশে থাকতে প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেছিলেন, বদ্ধ পরিবেশ দলকে আরও বেশি ঐক্যবদ্ধ করে। কোচের এই কথাকে মাহমুদউল্লাহ কীভাবে দেখছেন? 

‘যেটা প্রথমেই বললাম, যখন আমরা প্লেনে উঠি, যখন বোর্ড থেকে সিদ্ধান্ত নেয় আমরা এখানে খেলব, তারপর থেকে আমরা আসলে বদ্ধ পরিবেশ কিনা না, আমরা কোন পরিবেশে যাচ্ছি; এটা বিষয় নয়। আমার মনে হয় ওই ধরনের চিন্তা ভাবনা থেকে সরে আসাই ভালো। আমার মনে হয় দলের প্রতিটা খেলোয়াড় ওভাবেই চিন্তা করছে। আমরা স্রেফ ভালো পারফরম্যান্স করার জন্য এখানে এসেছি। এবং আমরা ভালো খেলার জন্য সবাই মুখিয়ে আছি’- জবাব দিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ।

এই ‘বন্দিদশা’কে একদিক থেকে ইতিবাচক হিসেবেও দেখছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক, ‘এটা একদিক থেকে ইতিবাচক হতে পারে। কারণ আপনি সতীর্থদের সঙ্গে অনেক সময় কাটাচ্ছেন। এটা আমার কাছে মনে হয় ইতিবাচকই।

পাকিস্তান যে নিরাপত্তা দিচ্ছে, তা নিয়ে সন্তুষ্টির কথাও জানিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ, ‘আমরা এই ধরনের (নিরাপত্তা) আগে দেখিনি। আমি এই মুহূর্তে এটা অনেক উপভোগ করছি। আমি বলব পাকিস্তান আমাদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিচ্ছে। আমি সকল ব্যবস্থাপনা নিয়ে সন্তুষ্ট।’

শুক্রবার লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হবে দুই দল। ম্যাচ শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টায়।

 

ঢাকা/পরাগ

     
 
রাইজিংবিডি স্পেশাল ভিডিও