Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ৩০ নভেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ১৬ ১৪২৮ ||  ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

ব্রেট লির কলাম: অস্ট্রেলিয়ার ‘ডেভিড বেকহ্যাম’ কামিন্স

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:২১, ২১ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৭:৪৪, ২১ অক্টোবর ২০২১
ব্রেট লির কলাম: অস্ট্রেলিয়ার ‘ডেভিড বেকহ্যাম’ কামিন্স

প্রথম কথা, একটি বড় টুর্নামেন্টে ফিরতে পেরে আনন্দিত। আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ২০২১ অনেক বড় আসর এবং বিশ্বকাপ আবার আসায় আমি বেশ আনন্দিত। কারণ বিশ্বের অনেক মানুষ এখনো লকডাউনে আছে।

মানুষকে একত্রিত করার জন্য টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট একটি দুর্দান্ত ফরম্যাট এবং আগামী কয়েক সপ্তাহে আমি দারুণ কিছু দেখার অপেক্ষায় আছি। আশা করি, এর অনেকটা অস্ট্রেলিয়া থেকে আসবে, যারা শনিবার পুরোনো শত্রু দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অভিযান শুরু করবে।

এটাই একমাত্র আইসিসি টুর্নামেন্ট যেখানে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল এখনো সফলতা পায়নি এবং আমরা অস্ট্রেলিয়ানরা ক্ষুধার্ত হয়ে আছি। আমার প্রত্যাশা, অস্ট্রেলিয়া মাঠে এবং বিশ্বকাপ জিতবে। আমি নিশ্চিত অস্ট্রেলিয়াকে ঘিরে অনেক প্রত্যাশা। কিন্তু আমি জানি, আপনি যদি নিজের লক্ষ্য উচুঁতে না রাখেন তাহলে সফল হতে পারবেন না।

এই ফরম্যাটে আমাদের খুব একটা সাফল্য নেই। এবার সেই সময়টা এসেছে যেভাবে আমাদেরকে সেরা ক্রিকেটটা খেলে সর্বোচ্চ সাফল্য পেতে হবে। অবশ্যই কাজটা সহজ নয়। বিশেষ করে আপনার প্রতিপক্ষ যখন অনেক শক্তিশালী; ভারত, ইংল্যান্ড, নিউ জিল্যান্ডের মতো দল এখানে আছে।

তবে এই অস্ট্রেলিয়ান দলে প্রতিভাবান ক্রিকেটারে ভরপুর। আমি মনে করি ডেভিড ওয়ার্নার আমাদের সেরা অস্ত্র। আমি মনে করি সে বিশ্বকাপের জন্য নিজের রান জমা রেখেছে। আইপিএলে সে সঠিক মূল্যায়ন পায়নি। সেই জেদ অবশ্যই আছে। বড় মঞ্চে নিজেকে মেলে ধরার তাড়না অবশ্যই অনুভব করছে সে। এখানে সবকিছুই তার পক্ষে থাকবে। নিশ্চিত করে বলতে পারি, ক্লাস ইজ পারমানেন্টে।

আমার পূর্ণ আস্থা আছে মিচেল স্টার্কের ওপর। গত বছর তাকে নিয়ে বেশ কিছু বিতর্ক উঠেছিল। কিন্তু সে সবসময়ই আমার একাদশে থাকবে। জস হ্যাজেলউডের আইপিএল দারুণ কেটেছে। প্যাট কামিন্স এ আক্রমণের সুপারস্টার। আমাদের দলের ডেভিড বেকহ্যাম সে। যেটাই স্পর্শ করে সেটাই সোনা হয়ে যায়।

তবে এই দল খুব সহজেই গড়ে উঠেনি। শুরুতেই একটি জয় দলের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দিতে পারে। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা বরাবরই হুমকি।

খেলোয়াড় আসবে যাবে। কিংবদন্তি ক্রিকেটারও আসবে যাবে। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার মতো দলের বিপক্ষে যখন আপনি খেলতে যাবেন তখন আপনাকে সম্মান দেখাতে হবে। তাদের দলে বেশ কয়েকজন ম্যাচ উইনার আছে যারা যে কোনো সময় ম্যাচের মোড় ঘোরাতে পারে। চার কিংবা পাঁচ ওভারই তাদের জন্য যথেষ্ট। তাদের বিরুদ্ধে আমাদের কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে। 

খেলা হচ্ছে উপমহাদেশে। এখানকার উইকেট সম্পর্কে পূর্ণ ধারণা না থাকলে সফলতা পাওয়া কঠিন। সবকিছু বিবেচনায় আমি ভারতকেই ফেভারিট বলব। তাদের ব্যাটিংয়ের প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যান এবং বিধ্বংসী বোলিং আক্রমণ সময়ের সেরা। লোকেশ রাহুলকে দেখে মনে হচ্ছে সে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান করবে। মোহাম্মদ শামি হতে পারে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। তারা যদি সত্যিই ভালো করে ভারতের চ্যাম্পিয়নশিপ কেউ আটকাতে পারবে না।

তবে সবকিছুর উর্ধ্বে আমার অস্ট্রেলিয়া। দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে যদি দারুণভাবে বিশ্বকাপ শুরু করতে পারে আমি বিশ্বাস করি ব্যাগি গ্রিনরা টুর্নামেন্টে দারুণ কিছু করবে।

ঢাকা/ইয়াসিন/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়