ঢাকা     রোববার   ২১ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৬ ১৪৩১

বাগমারার ৪ স্থানে এমপির কর্মীদের ওপর নৌকা সমর্থকদের হামলা

রাজশাহী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪৯, ১৯ ডিসেম্বর ২০২৩  
বাগমারার ৪ স্থানে এমপির কর্মীদের ওপর নৌকা সমর্থকদের হামলা

রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের চারটি স্থানে বর্তমান সংসদ সদস্য ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের নির্বাচনী প্রচার গাড়ি ভাঙচুর, পোস্টার লুট করে পুকুরে নিক্ষেপ ও প্রচারকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত হয়েছেন এনামুলের ১৮ জন কর্মী। হামলার ঘটনায় থানায় মামলাও হয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে গণিপুর ইউনিয়নের আঁচিনঘাট গ্রামে স্বতন্ত্র প্রার্থী এনামুল হকের কর্মীরা কাঁচি প্রতীকের পোস্টার লাগাচ্ছিলেন। এ সময় আওয়ামী লীগ প্রার্থী কালামের লোকেরা তাদের ওপর হামলা চালান। হামলায় রাব্বী (২৩), রোবায়েত (২৬) ও হৃদয়সহ ছয় জন আহত হন। হামলাকারীরা কাঁচি প্রতীকের তিন হাজার পোষ্টার কেড়ে নিয়ে পার্শ্ববর্তী পুকুরে ফেলে দেন।

দুপুর ২টার দিকে বাগমারার যাত্রাগাছি এলাকায় কাঁচি প্রতীকের হ্যান্ডবিল বিতরণের সময় ফুলসার হোসেনের নেতৃত্বে কালামের লোকজন এনামুলের কর্মীদের ওপর হামলা চালান। এতে তিনজন আহত হন। আহতদের মধ্যে মাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য আশরাফুল ইসলামের মাথা ফেটে গেছে। তাকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ও পরে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

বিকেল ৩টার দিকে গোবিন্দপুর ইউনিয়নের হাটদামনাশ এলাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচারণা চলাকালে নৌকা প্রতীকের একদল কর্মী প্রচার গাড়িটি ভাঙচুর করে। হামলায় নৌকা প্রতীকের কর্মী মোস্তাক, রনি ও আফাজ উদ্দিনসহ ৬-৭ জন অংশ নেন। তারা প্রচার গাড়ি ও মাইক ভাঙচুর করে। তারা গাড়িতে থাকা চার হাজার পোস্টার লুট করে নিয়ে যায়।

এ ঘটনায় গাড়ি চালক এমরান হোসেন বাদী হয়ে আজ (মঙ্গলবার) সন্ধ্যায় বাদী হয়ে নৌকার ১০ জন নেতাকর্মীকে আসামি করে বাগমারা থানায় মামলা করেছেন। এছাড়া, সন্ধ্যার আগে তাহেরপুর পৌর এলাকার অর্জুনপুর মহল্লায় কাঁচি প্রতীকের সাইকেল র‌্যালিতে হওয়া হামলায় জিল্লুর, আনোয়ার, কাসেমসহ মোট ৮ জন স্কুলছাত্র আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান সংসদ সদস্য এনামুল হক বলেন, নৌকার প্রার্থী আবুল কালাম আজাদের সন্ত্রাসী বাহিনী একদিনে তার কর্মীদের ওপর চারটি জায়গায় হামলা চালিয়েছে। গুরুতর আহত আশরাফুল ইসলামকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা চিকিৎসা নিয়েছেন বাগমারা উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে। কালামের সন্ত্রাসীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।  

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বলেন, এসব বিচ্ছিন্ন কোন ঘটনা। নির্বাচনের সঙ্গে এসব ঘটনার কোনো সম্পর্ক নেই। 

মামলায় নৌকার কর্মীদের হামলার অভিযোগ উল্লেখ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এখন ভোট চলছে। যে কোনো ঘটনাকে নির্বাচনী ঘটনা বলে চালিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার বলেন, পুলিশ অভিযোগের তদন্ত করছে। তদন্ত শেষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কেয়া/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়