ঢাকা     শুক্রবার   ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৬ ১৪৩১

শোকজের জবাব দিলেন রেলমন্ত্রী

পঞ্চগড় প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৫১, ২৭ ডিসেম্বর ২০২৩  
শোকজের জবাব দিলেন রেলমন্ত্রী

রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন

নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশের (শোকজ) জবাব দিয়েছেন পঞ্চগড়-২ আসনে ‘নৌকা’ প্রতীকের প্রার্থী ও রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। বুধবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টার দিকে সংসদীয় এই আসনের নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও সিনিয়র সহকারী জজ ইসমাইল হোসাইনের আদালতে উপস্থিত হয়ে জবাব দেন তিনি।

এর আগে, গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেন নির্বাচন অনুসন্ধান কমিটি। নোটিশে নির্বাচনি সভায় আচরণবিধি লঙ্ঘন করে বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগ তোলা হয়। আজ (বুধবার) দুপুর ১২টায় তাকে আদালতে সশরীরে হাজির হয়ে অভিযোগের বিষয়ে ব্যাখ্যা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

আদালত থেকে বের হয়ে রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা হলো- আমি বক্তব্য বলেছিলাম যারা ভোট দেবে না তাদের তালিকা করতে হবে। এটি উস্কানিমূলক বক্তব্যের আওতায় এসেছে এবং আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়েছে মর্মে আমাকে নোটিশ করা হয়েছে। নোটিশের জবাবে আমি বললাম, যে দুইটি ধারায় আপনারা আমাকে নোটিশ দিয়েছেন তা উস্কানিমূলক বক্তব্যের মধ্যে পড়ে না। একজন প্রার্থী হিসেবে আমার দায়িত্ব ভোটারদের আহ্বান করা ভোট দেওয়ার জন্য। যারা ভোট দিতে আসছে না তাদের তালিকাতো থাকছেই। ভোট দেবেন না, ভোট দিতে আসবেন না- এমন নেগেটিভ বক্তব্যতো আমি দেইনি। যেহেতু উনারা নোটিশ করেছেন, আমি এসেছি। ভবিষ্যতে আমি সতর্ক থাকবো। যেহেতু, আমি নিজেও অঙ্গিকারবদ্ধ একটি অবাধ, সুষ্ঠু এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের।’

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট আমিনুল ইসলাম, পঞ্চগড় নারী ও নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যালের পিপি অ্যাডভোকেট আজিজার রহমান আজু, আইনজীবী সমিতির সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম, অ্যাডভোকেট ওয়াহেদুজ্জামান সুজা, অ্যাডভোকেট মির্জা সারোয়ার আলম, অ্যাডভোকেট মির্জা সুলতানে আলম প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজনকে দেওয়া কারণ দর্শানোর নোটিশে (শোকজ) বলা হয়, ‌‘আপনি জনাব মো. নূরুল ইসলাম সুজন, রেলপথমন্ত্রী, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলাধীন পামুলীতে নির্বাচনি সভায় গত ২৩ ডিসেম্বর, ২০২৩ এবং গত ২৫ ডিসেম্বর, ২০২৩ ইং তারিখে বোদা উপজেলার চন্দনবাড়ী এলাকায় বক্তব্য দেওয়ার সময় ভোট দিতে না গেলে তাদের তালিকা করার হুমকি দেন এবং বলেন যে, ‘একটি দল বের হয়েছে। তারা বলছে ভোট দেবে না। তাদের কথায় যদি কেউ ভোট দিতে কেন্দ্রে না যায় তাহলে ভোট দেওয়া নিয়ে আমরা দু’টি লিস্ট করব, একটি কারা ভোট দিতে কেন্দ্রে যাচ্ছে, আর একটিতে থাকবে কারা যাচ্ছে না। আপনি সরকারি সুযোগ সুবিধা নিবেন আর নাগরিক অধিকার ভোট দিতে যাবেন না, তা হবে না।’

‘আপনার উক্ত বক্তব্যের ভিডিও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত হয়েছে। আপনার উক্ত বক্তব্যের দ্বারা সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালা ২০০৮ এর ৬ (ক) ও ১১(ক) বিধির লঙ্ঘন হয়েছে। এমতাবস্থায়, উক্ত আইন ভঙ্গের কারণে কেন আপনার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হবে না, সেই মর্মে নিম্ন স্বাক্ষরকারীর কার্যালয়ে আগামী ২৭ ডিসেম্বর, ২০২৩ ইং তারিখ রোজ বুধবার দুপুর ১২:০০ ঘটিকায় স্ব-শরীরে উপস্থিত হয়ে লিখিত ব্যাখ্যা প্রদানের জন্য গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ, ১৯৭২ এর ৯১(ক) এর ৫(ক) অনুচ্ছেদের ক্ষমতাবলে নির্দেশ প্রদান করা হলো।’

নাঈম/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়