ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৮ ১৪৩১

বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের জন্য ‘নহর ইনিশিয়েটিভস’

জ্যেষ্ঠ প্রতি‌বেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:২৭, ১ মার্চ ২০২২  
বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের জন্য ‘নহর ইনিশিয়েটিভস’

বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার ২৭.২১ শতাংশ শিশু, যাদের বয়স ১৫ বছরের নিচে। পরিবেশগত বৈরিতা, সচেতনতার অভাব এবং অর্থনৈতিক অসচ্ছলতা এদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশের প্রধান অন্তরায়। এসব কারণে শিশুরা হয় বিভিন্ন সুবিধা থেকে বঞ্চিত।

সহজভাবে বললে ইন্দ্রিয় ক্ষমতা, বুদ্ধি বা শারীরিক অক্ষমতার কারণে যেসব শিশুর বিশেষ শিক্ষা, চিকিৎসা, অর্থনৈতিক ব্যবস্থা গ্রহণের প্রয়োজন হয়- সেসব শিশুকে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশু বলা হয়। 

আর ব্যতিক্রমধর্মী শিশুদের চাহিদা মেটানোর জন্য যে শিক্ষা ব্যবস্থার প্রয়োজন তাকেই সাধারণত ‘বিশেষ শিক্ষা’ বলা হয়ে থাকে। এ ধরনের শিক্ষার জন্য প্রয়োজন হয় বিশেষ ধরনের সরঞ্জাম, উপকরণ এবং বিশেষ ব্যবস্থার। বর্তমানের সমন্বিত শিক্ষা ব্যবস্থায় সাধারণ শিক্ষক এবং বিশেষ শিক্ষক উভয়ই এই শিশুদের শিক্ষাপ্রদান করে থাকেন। সমন্বিত শিক্ষা ব্যবস্থা ছাড়া এদের জন্য বিশেষ বিদ্যালয়, আবাসিক বিদ্যালয়ের সুযোগ সুবিধা রয়েছে। ব্যতিক্রমধর্মী এসব শিশুদের জন্য সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে যথেষ্ট উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। 

এর পাশাপাশি বর্তমান সময়ে সমাজের সচেতন তরুণ যুবক ভবিষ্যতে সুদূরপ্রসারী প্রভাব ফেলার লক্ষে বিভিন্ন জায়গা থেকে বিভিন্ন মাধ্যমের মধ্য দিয়ে জনসচেতনতামূলক কাজ করে যাচ্ছেন।

এই সচেতন নাগরিকদের একজন ফারিদ খান, যিনি নহর ইনিশিয়েটিভসের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে নিয়মিত কাজ করছেন বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের নিয়ে।

ফারিদ খান তার এই কার্যক্রম সম্পর্কে জানান, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের শারীরিক ও মানসিক উন্নতির লক্ষে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে তার প্রতিষ্ঠান কাজ করে যাচ্ছেন। প্রতিষ্ঠানটি এসব প্রতিষ্ঠানগুলোকে এই শিশুদের জন্য পেশাদার ও দায়িত্ববান মানুষ তৈরিতে উদ্বুদ্ধ করছেন।

এছাড়া বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের উন্নয়নের লক্ষে তার প্রতিষ্ঠান যে বিষয়গুলো নিয়ে কাজ করে সেগুলো হলো-

ক. এই শিশুরা দিনের নির্দিষ্ট একটা সময় স্কুলে ও চিকিৎসকের সাথে থাকেন। এর বাইরে এই শিশুরা সময় কাটান পরিবার ও সমাজের অন্য সব মানুষের সাথে। ফারিদ খান ও তার সংগঠনের ইচ্ছা হচ্ছে স্কুলে ও চিকিৎসকের বাইরের যে সমাজে এই শিশুরা সময় কাটান তাদের সচেতন করা। এই লক্ষে নহর ইনিশিয়েটিভস’র উদ্যোগে স্ট্রিট শো সম্প্রচার শুরু করেছেন। এই জনসচেতনতামূলক অনুষ্ঠান যা সংশ্লিষ্ট পেশা ও পেশার বাইরে সাধারণ মানুষকে তাদের ব্যাপারে জানতে এবং তাদের অধিকার নিয়ে সচেতন হবার জন্য সচেষ্ট করছে। এর পাশাপাশি এই সেক্টরে কাজ করা মানুষগুলোকে সামনে নিয়ে এসে তাদের কাজগুলোকে তুলে ধরা এবং ভালোবাসার দৃঢ় বন্ধনে একত্রিত করা।

খ. যে সেবাগুলো বর্তমানে বিদ্যমান আছে, সেসব আরো আধুনিকায়ন করা এবং এসব খাতে যারা জড়িত তাদের সচেতন করা।

গ. বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন এই শিশুদের আরো কী কী সেবা প্রয়োজন সেই জায়গাগুলো নিয়ে কাজ করা।

ঘ. এই শিশুদের সার্বিক উন্নতির জন্য যে পরিমাণ জনশক্তি প্রয়োজন তা চাহিদার তুলনায় অত্যন্ত অপ্রতুল। ফারিদ খান ও তার প্রতিষ্ঠান সেই লক্ষে তরুণদের উদ্বুদ্ধকরণের কাজ করে যাচ্ছেন। এছাড়া যারা এ সংশ্লিষ্ট কাজের সাথে যুক্ত তাদের এগিয়ে যেতে সাহায্য করা।

মেয়া/এনএইচ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়