RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০১ অক্টোবর ২০২০ ||  আশ্বিন ১৬ ১৪২৭ ||  ১৩ সফর ১৪৪২

করোনা টেস্ট : মানুষের জেনেটিক তথ্য সংগ্রহ করছে চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৩৬, ৫ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
করোনা টেস্ট : মানুষের জেনেটিক তথ্য সংগ্রহ করছে চীন

করোনা শনাক্ত পরীক্ষা নিয়ে যখন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে হুড়াহুড়ি অবস্থা চলছে তখন এই পরীক্ষার সুবাদে নাম কামিয়ে নিচ্ছে একটি চীনা প্রতিষ্ঠান। জেনোম নিয়ে গবেষণাকারী বিজিআই গ্রুপ নামের এই প্রতিষ্ঠানটি করোনা মহামারিকালে প্রায় সারাবিশ্বে তার পদচিহ্ন রাখছে।

গত ছয় মাসে প্রতিষ্ঠানটি ১৮০টি দেশে সাড়ে তিন কোটি কোভিড-১৯ টেস্টিং কিট বিক্রি করেছে এবং ১৮টি দেশে ৫৮টি গবেষণাগার স্থাপন করেছে। এই গবেষণাগারগুলোতে কিছু সরঞ্জাম দিয়েছে বিজিআইয়ের জনহিতকর শাখা, যাতে সমর্থন জুগিয়েছে চীনের দূতাবাসগুলো। টেস্ট কিটগুলোর পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটি জিন সিকোয়েন্স প্রযুক্তি ছড়িয়ে দিচ্ছে।

মার্কিন নিরাপত্তা কর্মকর্তারা অবশ্য দাবি করেছেন, এই বিষয়টি জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দেখা দিতে পারে। বিশ্বব্যাপী এটি একটি স্পর্শকাতর বিষয়। সিকোয়েন্স ডিভাইসগুলো জেনেটিক উপাদান বিশ্লেষণ করে এবং এগুলো গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিগত তথ্য প্রকাশ করে দিতে পারে।

বিজিআই তার সরঞ্জামে বিশ্লেষণ করা করোনাভাইরাসের তথ্য পাঠাতে আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য গবেষকদেরকে বিজ্ঞান সাময়িকী ও অনলাইনের মাধ্যমে উন্মুক্ত আহ্বান জানিয়ে আসছে।  কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়া রোগীর নমুনা সরকারিভাবে চীন সরকারের অর্থায়নে পরিচালিত ন্যাশনাল জিনব্যাংকে পাঠাতে চায় সংস্থাটি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মার্কিন প্রশাসনের এক শীর্ষ কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেছেন, ঝুঁকিটা হচ্ছে, চীন বিশ্বব্যাপী মানুষের জেনেটিক তথ্য সংগ্রহ করতে পারবে।

শেনঝেনভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির বৈশ্বিক সম্প্রসারণের ভিত্তিমূলে চীন সরকারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটিকে চীনের জাতীয় জেনেটিক ডাটাবেজ সংরক্ষণ এবং সরকারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রধান গবেষণাগারগুলোতে গবেষণা পরিচালনায় ভূমিকা পালনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

শেয়ারবাজারে নথিপত্রে বিজিআই উল্লেখ করেছে, এর উদ্দেশ্য হচ্ছে, ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টিকে ‘আন্তর্জাতিক বায়োটেকনোলোজি প্রতিযোগিতায় নেতৃস্থানীয় ভূমিকা অর্জনে’ সহযোগিতা করা।

রয়টার্স জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত রোগীর ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষা লঙ্ঘনের প্রমাণ বিজিআইয়ের বিরুদ্ধে তারা পায়নি। 

বিজিআই দাবি করেছে, তারা চীন সরকারের মালিকানাধীন নয়।

ঢাকা/শাহেদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়