RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৯ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৪ ১৪২৭ ||  ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বড় বিপর্যয় অপেক্ষা করছে ইউরোপের জন্য

আন্তর্জাতিক ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৬:০২, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৮:১৫, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০
বড় বিপর্যয় অপেক্ষা করছে ইউরোপের জন্য

করোনাভাইরাসের ‘দ্বিতীয় ঢেউ’ এখন আঘাত হানছে ইউরোপে। অবশ্য সংক্রমণের হার বাড়লেও এই অঞ্চলে মৃতের সংখ্যা এখনও প্রথম দফার মতো বাড়েনি। তবে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, আগামী শীতে আরও বড় বিপর্যয় অপেক্ষা করছে ইউরোপের জন্য।

কোভিড-১৯ এর চিকিতসায় ইউরোপের হাসপাতালগুলো এখন প্রথম দফার তুলনায় অনেক বেশি প্রস্তুত ও সরঞ্জামে সজ্জিত। সামাজিক দূরত্ব মানা এবং মাস্ক পরা এখন নৈতিক ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে। সম্প্রতি তরুণদের মধ্যে সংক্রমণের হার বাড়লেও মৃত্যুর হার কম। তবে এখনও ঠাণ্ডা মৌসুম আসেনি। এর মধ্যেই সর্দির মৌসুম আসি আসি করছে। বয়স্ক জনগোষ্ঠীর মধ্যে সংক্রমণ ঘটাচ্ছে ভাইরাস। জনগণ ক্রমাগত বিধি-নিষেধের কারণে বিরক্ত হয়ে উঠছে।

যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব সাউদাম্পটনের বৈশ্বিক স্বাস্থ্য বিষয়ক রিসার্চ ফেলো মিশেল হিড বলেন, ‘লকডাউন ও সামাজিক দূরত্বের মতো বিধি-নিষেধ ছাড়া করোনার সংক্রমণ ঠেকানোর কোনো উপায় নিশ্চিতভাবেই আমাদের কাছে নেই। আমরা এখনও টিকা পাইনি।’

প্রথম দফার মতো এবার করোনায় বিপুলসংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়তো হবে না বলে জানান হিড।

তিনি বলেন, ‘আমরা ব্যাপক সংক্রমণের ঘটনা পেতে যাচ্ছি, আমরা হাসপাতালে বিপুল সংখ্যক মানুষকে দেখতে পাবো এবং আমাদের স্বাস্থ্যসেবা খাতে বিপুল পরিমাণ বোঝা দেখতে পাবো। মৃত্যুর অনেক বড় সংখ্যাও হবে।’

জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার পর্যন্ত বিগত সাতদিনে ইউরোপে গড়ে ৫২ হাজার ৪১৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই সময়ে মৃত্যুর গড় ছিল ৫৫৬ জন। অথচ গত এপ্রিলের ১০ তারিখের আগের সাত দিনে মৃত্যুর গড় ছিল চার হাজার ১৩৪ জন।  

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ইউরোপ অঞ্চলের পরিচালক হান্স ক্লুগ জানিয়েছেন, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে সংক্রমণের বড় অংশই ছিল ২৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সী মানুষ। তবে ৫০ থেকে ৭৯ বছরের মানুষদের মধ্যেও সংক্রমণের হার বাড়ছে।

তিনি বলেন, ‘আমরা দেখছি ইউরোপের সব দেশেই বয়স্ক ও অরক্ষিত জনগোষ্ঠীর মধ্যে আবারও সংক্রমণ বাড়ছে। তাই এটা আসলে খুবই অনুমানযোগ্য অবস্থা যে, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স বা স্পেনে তরুণ জনগোষ্ঠী আক্রান্ত হচ্ছে এবং চার থেকে ছয় সপ্তাহ পর আমরা বয়স্ক জনগোষ্ঠীকে সংক্রমণের শিকার হতে দেখবো।’

ঢাকা/শাহেদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়