Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৬ মে ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ২ ১৪২৮ ||  ০৩ শাওয়াল ১৪৪২

কেন বাড়ছে করোনায় মৃত্যু? 

মেসবাহ য়াযাদ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৪৬, ১০ মার্চ ২০২১   আপডেট: ১৮:০৬, ১০ মার্চ ২০২১
কেন বাড়ছে করোনায় মৃত্যু? 

স্বাস্থ‌্যবিধি মেনে চলার কারণে কদিন আগেও দেশে করোনার সংক্রমণ ও মৃত‌্যুর হার কমে এসেছিল বলে মনে করছেন চিকিৎসকসহ সংশ্লিষ্টরা। তারা বলছেন, সংক্রমণ-মৃত‌্যুর হার কিছু দিন ধরে কমতে কমতে আবারও  ঊর্ধ্বমুখী গতিতে ফিরতে শুরু করেছে। এতে সংশ্লিষ্টরা শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। তাদের মতে, দেশের মানুষ কিছুদিন মাস্ক পরাসহ গণজমায়েত এড়িয়ে চলেছে। তখন সংক্রমণ ও মৃত‌্যুর হারও কম ছিল। কিন্তু এই হারের কারণে সাধারণ মানুষের মধ‌্যে করোনাভীতি কমে গেছে। জনগণের মধ‌্যে মাস্ক ব‌্যবহারে উদাসীনতা বাড়ছে। ফলে আবারও সংক্রমণ ও মৃত‌্যুর হার বেড়েই চলেছে। এই অবস্থা পরিবর্তনে তারা স্বাস্থ‌্যবিধি মেনে চলার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে প্রতিদিন গণমাধ‌্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা গেছে, ২০২০ সালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৩০ জুন সর্বোচ্চ মৃত্যুবরণ করেন ৬৪ জন। আর সবচেয়ে কম—১ জন মারা যান ২০২০ সালে ১৮ মার্চ। এছাড়া, ২০২১ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি সর্বোচ্চ ১৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। সর্বনিম্ন মারা গেছেন ৩ মার্চ। ওই দিন  ৫ জনের প্রাণহানি ঘটে।

মূলত এরপর থেকেই ক্রমাগত বাড়তে থাকে করোনায় মৃত‌্যুর হার।  স্বাস্থ‌্য অধিদপ্তর বলছে, ৪ মার্চ ৭ জন, ৫ মার্চ ৬ জন, ৬ মার্চ ১০ জন, ৭ মার্চ ১১ জন, ৮মার্চ ১৪ জন ও ৯ মার্চ ১৩ জন করোনায় মৃত‌্যুবরণ করেছেন।  

হঠাৎ করে কেন বেড়েছে করোনায় মৃত‌্যুর সংখ্যা, এমন প্রশ্নের জবাবে ঢাকা শিশু হাসপাতালের অধ্যাপক ডা. ফরহাদ মঞ্জুর বলেন, ‘টিকা আসার পর থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার প্রবণতা অনেক কমে গেছে। সাধারণ মানুষের মধ্যে একটা ডেমকেয়ার ভাব এসেছে। পাবলিক প্লেসে মাস্ক ব্যবহারের হারও কমে গেছে।’ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে সবাইকে সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন এই চিকিৎসক।

প্রতিকার প্রসঙ্গে জানতে চাইলে একটি বেরসরকারি হাসপাতালের অধ্যাপক ডা. মঞ্জুর রহমান বলেন, ‘কোনো সমস্যা বা বিপদের সঙ্গে অনেকদিন থাকলে সেটা মানুষের জন‌্য সহনীয় হয়ে পড়ে।  তাকে মানুষ জীবনের অংশ মনে করে। দৈনন্দিন জীবনে সতর্কতা কমে যায়। করোনার ব্যাপারটাও সে রকম হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘মানুষকে সতর্কভাবে চলাফেরা করতে হবে। মাস্ক পরতে হবে।’
 
এদিকে, চলতি মাসের (মার্চ-২০২১) প্রথম সপ্তাহে পরপর দুদিন করোনার প্রকোপ বেড়ে যাওয়ায় ৯ মার্চ (মঙ্গলবার) সবাইকে আরও সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, চলতি মাসসহ পরবর্তী ৩ মাস (এপ্রিল, মে, জুন) সবাইকে আরও বেশি সতর্ক থাকতে হবে। পরিস্থিতির ওপর আরও বেশি পর্যবেক্ষণে রাখতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ অন্য দেশের তুলনায় অনেক ভালো অবস্থানে থাকলেও একেবারে শঙ্কামুক্ত নয়। ভ্যাকিসিন নেওয়ার পাশাপাশি সবাইকে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করার কথাও বলেন প্রধানমন্ত্রী।
 
উল্লেখ‌্য, করোনায় আক্রান্ত হয়ে এই পর্যন্ত যারা মারা গেছেন, তাদের বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়—৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী ১০ শতাংশ, ৪১ থেকে ৫০ বয়সের মধ্যে ২০ শতাংশ, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৪০ শতাংশ এবং ৬০ বছরের ওপরে মারা গেছেন ৩০ শতাংশ।

/এনই

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়