RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৯ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১৪ ১৪২৭ ||  ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

মোস্তাফিজের ছোঁয়ায় শরীফুলের বোলিংয়ে বৈচিত্র্য 

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৫৪, ১৮ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ০৮:০৮, ১৯ অক্টোবর ২০২০
মোস্তাফিজের ছোঁয়ায় শরীফুলের বোলিংয়ে বৈচিত্র্য 

একপ্রান্তে মোস্তাফিজুর রহমান। আরেক প্রান্তে শরীফুল ইসলাম। দুজনই বাঁহাতি পেসার। দুজনের মূল অস্ত্রও কাটার। রান আপ, বোলিং অ্যাকশনেও মিল থাকায় তাদের আলাদা করা খুব কঠিন। 

তাই তো দ্বিধায় পড়ে যেতে হয় অনেককেই। যেমনটা হয়েছে গত বৃহস্পতিবার মিরপুরে তামিম ইকবাল একাদশ ও নাজমুল হোসেন শান্তর একাদশের ম্যাচে। মোস্তাফিজ যেমন কাটার নিয়ে ক্রিকেটে এসেছিলেন, শরীফুল তেমনটা নয়। ধীরে ধীরে হয়েছেন পরিণত। এখন প্রায় মোস্তাফিজের মতোই কাটার দিতে পারেন শরীফুল। তার বোলিংয়ে সেই অস্ত্র যুক্ত করেছেন মোস্তাফিজ-ই। 

পারফরম্যান্স তো সেই কথাই বলছে। শেষ ম্যাচে ১০ ওভারে একটি মেডেন ও ৩৭ রানে নিয়েছেন ৪ উইকেট। নাজমুল একাদশের ইনিংসের মধ্যভাগে দুই ব্যাটসম্যান আফিফ হোসেন ও তৌহিদ হৃদয়কে কাটারে শরীফুল সাজঘরের পথ দেখান। আফিফকে ভেতরে ঢোকানো বলে এলবিডব্লিউ করেন। হৃদয়ের অফস্টাম্প ভেঙে যায়। শেষ দিকে শরীফুলের পকেটে ঢোকে নাঈম হাসান ও রিশাদ হোসেনের উইকেট। 

যুব দল পেরিয়ে বড়দের ক্রিকেটে নাম লেখানো শরীফুল শুরুতেই নিজের কারিশমা দেখিয়েছেন। এজন্য সিনিয়রদের কৃতিত্ব দিলেন যুব বিশ্বকাপজয়ী এ পেসার, ‘তামিম ভাই আমাকে বোলিংয়ের সময় বা নেট করার সময় অনেক কিছু বলেন। তারপর মোস্তাফিজ ভাই আছেন আমাদের দলে, তাকে আমি অনেক প্রশ্ন করি এবং তিনি সবকিছু সুন্দরভাবে শেখান, বোঝান। সাইফ উদ্দিন ভাইকেও জিজ্ঞাসা করি। ব্যাটসম্যানদের দুর্বলতার জায়গা সম্পর্কে জানার চেষ্টা করি। তাদের সঙ্গে সব কিছু শেয়ার করার পর একটা ব্যাপার ভালো লেগেছে, তাদের কিছু জিজ্ঞাসা করলে সঙ্গে সঙ্গে সুন্দর করে বুঝিয়ে দেন।’

যুব বিশ্বকাপ জয়ের পর প্রিমিয়ার লিগে খেলার কথা থাকলেও করোনার কারণে মাঠে নামা হয়নি। দীর্ঘ লকডাউন শেষে জৈব সুরক্ষা বলয়ে মাঠে নেমে দারুণ উচ্ছ্বসিত শরীফুল, ‘অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের প্রিমিয়ার লিগে একটা ম্যাচ খেলেছি। এরপর ৬-৭ মাস খেলার সুযোগ পাইনি। সরাসরি এখানে এসেছি। প্রথম দিকে ম্যাচ ফিটনেস, ম্যাচ পরিস্থিতি বুঝতে পারছিলাম না। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে মোটামুটি খেলেছি। ভালো লাগছে যে এতদিন পরে মাঠে ফিরেছি। মাঠ ছাড়া আসলে ভালো লাগে না।‘

শরীফুলরা প্রথম ম্যাচে হেরেছিল মাহমুদউল্লাহদের কাছে। দ্বিতীয় ম্যাচে তারা জয় পায় মুশফিকদের বিপক্ষে। সোমবার তাদের তৃতীয় ম্যাচ মাহমুদউল্লাহদের বিপক্ষেই। এ ম্যাচ জিতে ফাইনালের পথে এগিয়ে যেতে চান শরীফুল। 

এই ম্যাচকে ফাইনালের চেয়েও গুরুত্ব দিয়ে তিনি বলেছেন, ‘সোমবারের ম্যাচটি খুব গুরুত্বপূর্ণ, ফাইনালের থেকেও। যদি জিতি, তাহলে ফাইনালে যেতে পারবো। না গেলে পরেরটা কী হবে বলা যায় না। এজন্য আগামীকালের ম্যাচটিই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা ম্যাচটি ফাইনাল মনে করেই খেলবো।’

ঢাকা/ইয়াসিন/ফাহিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়