ঢাকা     শুক্রবার   ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৬ ১৪৩১

দুই প্রার্থীর সমর্থককে হাতুড়িপেটা করার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

রাজশাহী প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৪২, ১৭ ডিসেম্বর ২০২৩  
দুই প্রার্থীর সমর্থককে হাতুড়িপেটা করার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের হাতুড়িপেটা করার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ উঠেছে। এ আসনের বর্তমান এমপি এনামুল হক এবার দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। আর আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন তাহেরপুর পৌরসভার সদ্য সাবেক মেয়র আবুল কালাম আজাদ। দীর্ঘদিন ধরেই তাদের বিরোধ।

আবুল কালাম আজাদের অভিযোগ, তার যাত্রাগাছি ভোটকেন্দ্র পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব মাহাবুর রহমানকে (৪২) রোববার (১৭ ডিসেম্বর) দুপুরে তুলে নিয়ে গিয়ে হাতুড়িপেটা করা হয়েছে। পরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। মাহাবুর এমপি এনামুল হকের নিজের ইউনিয়ন মাড়িয়ার তেলিপুকুর গাঙ্গোপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। মাড়িয়া ইউনিয়ন সৈনিক লীগের সভাপতি তিনি।

আবুল কালাম আজাদ বলেন, দুপুরে মাহাবুর রহমান স্থানীয় গাঙ্গোপাড়া মোড়ের একটি চায়ের দোকানে বসে ছিলেন। এ সময় উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক ওরফে আর্ট বাবুর নেতৃত্বে চার-পাঁচটি মোটরসাইকেল নিয়ে বেশ কয়েকজন যুবক সেখানে যান। তারা চায়ের দোকান থেকে মাহাবুর রহমানকে তুলে নিয়ে যান এবং নৌকার নির্বাচন করার বিষয়ে কৌফিয়ত চান। এক পর্যায়ে মাহাবুরকে রাস্তার ওপর ফেলে হাতুড়িপেটা করা হয়। এরপর আহত অবস্থায় তাকে ফেলে গেলে স্থানীয়রা হাসপাতালে নিয়ে যান।

আবুল কালাম আজাদ জানান, এ ঘটনায় আর্ট বাবুসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করার প্রস্তুতি চলছে। হামলার শিকার তার কর্মী নিজেই বাদী হয়ে অভিযোগ করছেন। অভিযুক্ত আর্ট বাবু এক সময়ের সর্বহারা ক্যাডার। তিনি আত্মসমর্পণ করেছিলেন। পরে এমপি এনামুলের মাধ্যমে রাজনীতিতে এসেছেন। এক সময়ের এই ক্যাডারকে এমপি কৃষক লীগের নেতা বানিয়েছেন। তার নেতৃত্বে নৌকার সমর্থকদের ওপর হামলা চলছে। আগের দিন শনিবারও এমন ঘটনা ঘটেছে।

এ আসনের বর্তমান এমপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এনামুল হক দাবি করেন, দুপুরের ওই ঘটনার পর তার অন্তত ২০ নেতাকর্মীকে মারধর করা হয়েছে। এরমধ্যে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজ আক্তার বেবী ও মহিলা আওয়ামী লীগের কর্মী সেলিনা বেগমকে হাতুড়িপেটা করা হয়েছে। এনামুল দাবি করেন, এই দুই নারী সিএনজি অটোরিকশায় চেপে তার বাসায় আসছিলেন। সন্ধ্যায় মাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের সামনে সিএনজি থেকে নামিয়ে তাদের হাতুড়িপেটা করা হয়েছে। এছাড়া তাদের বহনকারী সিএনজি অটোরিকশাটিও ভাঙচুর করা হয়েছে।

তবে ঘটনার পর এ দুই নারীনেত্রীকে অবশ্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়নি। রাত ৯টার দিকে এমপি এনামুল হক জানান, আহত দুই নারী এখন তার বাসায় আছেন। তিনি দাবি করেন, ‘সন্ধ্যার পর বাগমারার ভবানীগঞ্জ গোডাউন মোড়ে তাণ্ডব চালিয়েছে নৌকার সমর্থকেরা। প্রায় ৫০-৬০ জন মিলে তার অন্তত ২০ কর্মী-সমর্থককে মেরেছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।’

জানতে চাইলে বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার বলেন, ‘দুপুরের ঘটনায় একজন আহত হয়েছেন শুনেছি। তারা অভিযোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন। সন্ধ্যার বিষয়ে পুলিশ এখনও কিছু জানে না। খোঁজখবর নিয়ে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
 

কেয়া/বকুল 

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়