ঢাকা     সোমবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ১৩ ১৪২৭ ||  ১০ সফর ১৪৪২

যেখানে রেখা ও রিয়া একই সুতোয় গাঁথা

বিনোদন ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:০০, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৭:২১, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০
যেখানে রেখা ও রিয়া একই সুতোয় গাঁথা

বলিউডের আশির দশকের ড্রিম গার্ল রেখা। অন্যদিকে এ সময়ের আলোচিত অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী। তুলনামূলক চিত্রে দু’জনের মধ্যে অনেক পার্থক্য। কিন্তু ৩০ বছরের ব্যবধানে ঘটা দু’টি ঘটনা তাদের একসুতোয় গেঁথে দিয়েছে।

অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর ঘটনায় মূল অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী। এই অভিনেতাকে মাদক সরবরাহ ও সেবনের ঘটনায় ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার হয়েছেন রিয়া।জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে মুম্বাইয়ের বাইকুল্লা কারাগারে আছেন এই অভিনেত্রী। এখানেই শেষ নয়, ভারতীয় মিডিয়ায় রিয়াকে নিয়ে নানা সমালোচনা হচ্ছে। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নানা বিদ্রূপ ও কটাক্ষের শিকার হচ্ছেন রিয়া।

১৯৯০ সালে অভিনেত্রী রেখাও একই রকম পরিস্থিতিতে পড়েছিলেন। সম্প্রতি গায়িকা চিন্ময়ী শ্রীপদা মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে রেখার বায়োগ্রাফি ‘রেখা: দ্য আনটোল্ড স্টোরি বাই ইয়াসের উসমান’ বইয়ের কিছু অংশ প্রকাশ করে বিষয়টি তুলে ধরেন। এতে তিনি সেই সময় রেখাকে নিয়ে দেওয়া কয়েকটি বক্তব্য উল্লেখ করেছেন।

রেখার স্বামী মুকেশ আগরওয়াল ১৯৯০ সালের ২ অক্টোবর আত্মহত্যা করেন। সুশান্তের মতো মুকেশও সিলিংয়ের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যা করেছিলেন। মুকেশও মৃত্যুর আগে বিষণ্নতাও ভুগেছেন। বিষয়টি রেখা জানতেন। মুকেশের মৃত্যুর পর মিডিয়া ট্রায়ালের মুখে পড়েন এই অভিনেত্রী। তাকে ‘ন্যাশনাল ভ্যাম্প’ আখ্যা দেওয়া হয়। রেখাকে নিয়ে নানা কটুক্তি করা হয়।

মুকেশের মা অভিযোগ করেন, রেখা তার ছেলেকে মেরে ফেলেছে। এছাড়া মুকেশের ভাইয়ের দাবি, তার ভাই রেখাকে সত্যি ভালোবাসতেন। কিন্তু রেখা তার সঙ্গে যা করছিলেন তা সহ্য করতে পারছিলেন না মুকেশ।

এদিকে নির্মাতা সুভাষ ঘাই ও অনুপম খেরও বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন। ‘রেখা: দ্য আনটোল্ড স্টোরি বাই ইয়াসের উসমান’ বইয়ে উল্লেখ করা হয়েছে, সুভাষ ঘাই বলেছেন, “রেখা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির মুখে কালি লেপে দিয়েছেন। খুব সহজে এটি দূর হবে না। আমার মতে, এখন কোনো সম্ভ্রান্ত পরিবার অভিনেত্রীদের বউ বানাতে দ্বিতীয়বার চিন্তা করবে। এছাড়া পেশাগত দিক সামলানো তার জন্য অনেক কঠিন হবে। কোনো পরিচালক তার সঙ্গে কাজ করতে রাজি হবেন না। দর্শক তাকে কীভাবে ‘ভারতীয় নারী’ কিংবা ‘ন্যায়বিচারের দেবী হিসেবে মেনে নেবেন?” অনুপম খের বলেন, ‘রেখা এখন জাতীয় খলনায়িকায় পরিণত হয়েছেন।’

চিন্ময়ী শ্রীপদা মনে করেন, ৩০ বছর পার হলেও এখনো একই ঘটনা ঘটছে এবং এর প্রতিক্রিয়াও একই রকম পাওয়া যাচ্ছে। পার্থক্য শুধু সে সময় ছিলেন রেখা, এখন রিয়া চক্রবর্তী। 

ঢাকা/মারুফ/তারা

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়