ঢাকা     সোমবার   ০৪ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২০ ১৪২৯ ||  ০৩ জিলহজ ১৪৪৩

ওয়ার্নারের আইপিএল কি শেষ?

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:৪৯, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৫:৫৮, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১
ওয়ার্নারের আইপিএল কি শেষ?

রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে দশম ম্যাচের একাদশে চারটি পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। সবচেয়ে চোখে পড়েছে ডেভিড ওয়ার্নারের বাদ পড়া। এমনকি অস্ট্রেলিয়ার বাঁহাতি ব্যাটসম্যানকে মাঠের কোথাও খুঁজে পাওয়া যায়নি। তার স্থলাভিষিক্ত হওয়া জেসন রয় কোচ ট্রেভর বেলিসের আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন ম্যাচসেরা ইনিংস খেলে। এই আসরে হায়দরাবাদের দ্বিতীয় জয়ের পর ওয়ার্নার সোশ্যাল মিডিয়ায় এক ভক্তের পোস্টে কমেন্ট করলেন, যা এখন আলোচনার তুঙ্গে। পরে এই প্রসঙ্গে কথা বলেন কোচও।

২০১৬ সালে আইপিএলে দলকে চ্যাম্পিয়ন বানাতে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ওয়ার্নার। প্রতিযোগিতায় তার সর্বমোট রান ৫৪৪৯। বিদেশি খেলোয়াড়দের মধ্যে সবচেয়ে ধারাবাহিক পারফর্মার তিনি। তবে এই বছরটা ভালো যায়নি। ৮ ম্যাচে রান ১৯৫ এবং স্ট্রাইক রেট ১০৭.৭৩, তার আইপিএল ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বাজে পরিসংখ্যান।

আমিরাত পর্বে প্রথম দুই ম্যাচ খেলে তার স্কোর ০ ও ২। আস্থা আর তার ওপর রাখতে পারেননি বেলিস। দলের সঙ্গে দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামেও যাওয়া হয়নি অজি ব্যাটসম্যানের। দলকে সমর্থন দিয়েছেন হোটেল রুম থেকে। আমিরাত পর্বে হায়দরাবাদ জিতেছে ওয়ার্নারের জায়গায় ওপেনিংয়ে নামা জেসন ৪২ বলে ৬০ রানে ভর করে।

এই জয়ে দলকে অভিনন্দন জানান ওয়ার্নার। তবে এক ভক্তের পোস্টে করা তার কমেন্ট ক্রিকেট অনুসারীদের নজর কেড়েছে।

হায়দরাবাদের এক ভক্ত ইনস্টাগ্রামে পোস্ট দিয়ে ওয়ার্নারকে না দেখার হতাশা ব্যক্ত করেন। একজন লিখেছেন, ওয়ার্নার কি স্টেডিয়ামে... আমরা তাকে দেখতেই পেলাম না! তারপর হতাশ এক ভক্ত অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানকে বিশ্রাম নিয়ে দারুণভাবে ফিরে আসার আহ্বান। সেখানেই ওয়ার্নারের কমেন্ট, ‘দুর্ভাগ্যবশত আর হয়তো দেখা হচ্ছে না। কিন্তু দয়া করে দলকে সমর্থন করে যান।’

এদিকে বেলিস ওয়ার্নারের বাদ পড়া প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘ডেভিড ওয়ার্নার তার হোটেল থেকে খেলা দেখেছে।’ বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের আইপিএল শেষ কি না তা খোলাসা করেননি হায়দরাবাদ কোচ, ‘আমরা ফাইনালে উঠতে পারব না, তাই আমরা চেয়েছি তরুণ খেলোয়াড়দের ম্যাচের পাশাপাশি মাঠে কেমন সময় কাটে এবং টিম সেট আপ কী রকম হয় সেই অভিজ্ঞতা পাক। তাই এই ম্যাচে আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি। শুধু সেই একমাত্র অভিজ্ঞ খেলোয়াড় ছিল না, হোটেলে আরও কয়েকজনকে রেখে এসেছিলাম (কেদার যাদব ও শাহবাজ নাদিমসহ অন্যদের)।’

এই কোচ আরও বলেন, ‘আমাদের দলে কিছু তরুণ খেলোয়াড় আছে যারা মাঠে আসতে পারেনি। এমনকি রিজার্ভ হিসেবেও। আমরা তাদের সুযোগ দিতে চেয়েছিলাম। এটা হয়তো আরও কয়েক ম্যাচ থাকবে। আমরা জানি না।’

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়