ঢাকা     শনিবার   ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||  ফাল্গুন ১২ ১৪৩০

নোয়াখালীতে বিএনপির মিছিলে আ.লীগের হামলার অভিযোগ, আহত ২০

নোয়াখালী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৫০, ১৯ নভেম্বর ২০২৩  
নোয়াখালীতে বিএনপির মিছিলে আ.লীগের হামলার অভিযোগ, আহত ২০

নোয়াখালীর সেনবাগে হরতালের সমর্থনে বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য কাজি মফিজ গ্রুপের মিছিলে হামলা চালিয়েছে আওয়ামী লীগ বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় ২০ জন আহত হয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে বিএনপির পক্ষ থেকে। আহতদের স্থানীয় বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

রোববার (১৯ নভেম্বর) উপজেলার আজিজপুর এলাকার ফেনী-নোয়াখালী মহাসড়কে ঘটনাটি ঘটে। 

আহতরা হলেন- সেনবাগ উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য সচিব আনোয়ার হোসাইন, স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ন-আহ্বায়ক রাশিদুল ইসলাম, বিএনপি কর্মী আলাউদ্দিন, মো. মহিন উদ্দিন, মো. সাইফুল ইসলাম, অন্তর, মোহাম্মদ আলম, আবু সুফিয়ান, রুবেল, বাদশা, ইমরান হোসেন, মোশাররফ হোসেন, মনির হোসেন, সিফাত আবুল কাশেম, ইকবাল হোসেন, সবুজ, মো. রুবেল, মো. শফিক, মোজাম্মেল হোসেন ও মো. রাব্বি।

সেনবাগ পৌরসভা বিএনপির সদস্য ভিপি মফিজুল ইসলাম বলেন, সকালে হরতালের সমর্থনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি মহাসড়কে কয়েক’শ গজ অতিক্রম করতেই কয়েকটি সিএনজি অটোরিকশা ও মোটরসাইকেলে করে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা এসে হামলা চালায়। এতে ২০ জন আহত হয়েছেন। 

বিএনপির দলীয় সূত্র জানায়, হামলার ঘটনার পর আহত নেতাকর্মীদের স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে, ফার্মেসিতে এবং বাড়িতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর। পুলিশি হয়রানি এড়াতে বাসা বাড়িতে রেখে তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে কাবিলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিরুল ইসলাম ওরফে ভিপি মোহন বলেন, বিএনপির মিছিলে হামলা কিংবা গুলির কোনো ঘটনা তার জানা নেই।  

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজিম উদ্দিন বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে পায়নি। পরে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিএনপির জয়নুল আবেদিন ফারুক অনুসারী ও কাজী মফিজ অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। গুলির ঘটনা ঘটেছে কি না সে বিষয়ে নিশ্চিত নয়। আহত কাউকেও পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে থানায় কেউ কোনো অভিযোগ করেনি।

সুজন/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়