ঢাকা     বুধবার   ২৪ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ১১ ১৪৩১

বগুড়ার ৭টি আসনে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের সংখ্যা অর্ধেকের বেশি

বগুড়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:১৯, ৬ জানুয়ারি ২০২৪  
বগুড়ার ৭টি আসনে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের সংখ্যা অর্ধেকের বেশি

বগুড়ার বিভিন্ন কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছে নির্বাচনি সরঞ্জাম

রোববার (৭ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। নির্বাচনে বগুড়ার ৭টি আসনের ৯৬৯টি স্থায়ী কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোটকেন্দ্রের মধ্যে অর্ধেকের বেশি ঝুঁকিপূর্ণ (গুরুত্বপূর্ণ) হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর মধ্যে বগুড়া-১ আসনের সারিয়াকান্দি উপজেলা চরাঞ্চলের ২০টি কেন্দ্রসহ মোট ৬৬২টি কেন্দ্র এ তালিকায় রয়েছে। এসব কেন্দ্রে বাড়তি নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। 

বগুড়া পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ৯৬৯ কেন্দ্রের মধ্যে ৬৬২ কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ (গুরুত্বপূর্ণ)। ৩০৭টি কেন্দ্রকে সাধারণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়া, সারিয়াকান্দি চর এলাকায় ২০টি কেন্দ্র রয়েছে। এসব কেন্দ্র উপজেলা শহর থেকে দূরে এবং দুর্গম এলাকায়। এসব কেন্দ্রে প্রার্থীদের সমর্থকদের মধ্যে অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে। এজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

বগুড়া নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, সাতটি আসনে মোট ভোটার ২৮ লাখ ২৮ হাজার ৩৪৪ জন। এর মধ্যে নারী ১৪ লাখ ২৪ হাজার ২৩ জন ও পুরুষ ১৪ লাখ চার হাজার ৩২১ জন। নারী ভোটার বেশি ১৯ হাজার ৭১১ জন। তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন ২৬ জন। গত নির্বাচনের চেয়ে এবার ভোটার বেড়েছে ২ লাখ ৮১ হাজার ৫৫ জন। ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটার ছিল ২৫ লাখ ৪৬ হাজার ৭৮৯ জন। আগে কেন্দ্র ছিল ৯২৬টি। ৪৩টি বেড়ে এবার হয়েছে ৯৬৯টি।

বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) আসনে ১২৪টি কেন্দ্রে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন ৩ লাখ ৫৫ হাজার ১০৯ জন। বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনে ১১০ কেন্দ্রে ৩ লাখ ২৬ হাজার ১৮৬ জন। বগুড়া-৩ (আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া) আসনে ১১৭ কেন্দ্রে ৩ লাখ ২২ হাজার ১৬৭ জন। বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনে ১১৪ কেন্দ্রে ৩ লাখ ৪৪ হাজার ৫১৪ জন। বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনে ১৮৮ কেন্দ্রে ৫ লাখ ৪০ হাজার ৬৮ জন। বগুড়া-৬ (সদর) আসনে ১৪৪ কেন্দ্রে ৪ লাখ ২৮ হাজার ৪২ জন ও বগুড়া-৭ (গাবতলী-শাজাহানপুর) আসনে ১৭২ কেন্দ্রে ৫ লাখ ১২ হাজার ২৫৮ জন ভোটার।

বগুড়ার পুলিশ সুপার (সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত ডিআইজি) সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী বলেন, সাতটি আসনে যে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা মোকাবেলায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ১৫ হাজার সদস্য প্রস্তুত রয়েছে। পুলিশসহ সব বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করা হয়েছে যাতে তারা একসঙ্গে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সচেষ্ট হয়।

বগুড়া জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, এবারের নির্বাচনে আমরা বগুড়ার সকল কেন্দ্রকেই গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখছি। নির্বিঘ্নে ভোট গ্রহণের জন্য বগুড়ায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণের জন্য পুলিশের পাশাপাশি, সেনাবাহিনী, বিজিবি, র‌্যাব ও আনসার ব্যাটালিয়নের সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। ভোটের দিন প্রতি কেন্দ্রে ১২ জন আনসার ও  ২ জন পুলিশ সদস্য থাকবেন। এছাড়া ১৫০টি স্ট্রাইকিং ফোর্স ও মোবাইল টিম, ২২ প্লাটুন বিজিবি সদস্য, সেনাবাহিনীর ২৮টি পেট্রোল টিম, ৩৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ১৪ জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।

এদিকে, শনিবার সকাল থেকেই ভোটের সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে প্রতিটি কেন্দ্রে। প্রিসাইডিং ও সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তারা সরঞ্জাম বুঝে নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সহায়তায় ভোটকেন্দ্রে নিয়ে গেছেন সরঞ্জামগুলো।

এনাম/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়