ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১৮ এপ্রিল ২০২৪ ||  বৈশাখ ৫ ১৪৩১

হবিগঞ্জ-৪

শোকজের জবাব দিলেন ব্যারিস্টার সুমন

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:৪৬, ২ জানুয়ারি ২০২৪   আপডেট: ২১:৫৯, ২ জানুয়ারি ২০২৪
শোকজের জবাব দিলেন ব্যারিস্টার সুমন

ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন

নির্বাচনি পোস্টারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ব্যবহারের ঘটনায় নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির কাছে শোকজের জবাব দিয়েছেন হবিগঞ্জ-৪ (চুনারুঘাট-মাধবপুর) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

মঙ্গলবার (২ জানুয়ারি) ব্যক্তিগত সহকারী রুহেল মিয়ার মাধ্যমে লিখিত জবাব অনুসন্ধান কমিটির কাছে পাঠান ঈগল প্রতীকের এই স্বতন্ত্র প্রার্থী।

আরও পড়ুন: পোস্টারে বঙ্গবন্ধুর ছবি দেওয়ায় ব্যারিস্টার সুমনকে শোকজ

শোকজের জবাবে ব্যারিস্টার সুমন বলেছেন, নির্বাচনি লিফলেটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি এবং ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগান ব্যবহার করেননি তিনি। তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে একটি মহল এই অভিযোগ করেছেন বলেও জানান তিনি। 

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, আচরণবিধি মেনে তিনি নির্বাচনি প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। কিন্তু ‘নৌকা’ প্রতীকের প্রার্থী ও কর্মীরা তাকে হেয় প্রতিপন্ন এবং নির্বাচন থেকে দূরে সরানোর জন্য নানাভাবে ষড়যন্ত্র করে আসছে। ওই লিফলেট ও পোস্টার সম্পর্কে তিনি অবগত নন।

নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির সহকারী শরীফ খন্দকার রুবেল জবাবের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্বাচন কমিশনে প্রতিবেদন দেওয়া হবে।

এর আগে নির্বাচনি পোস্টারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ব্যবহারের অভিযোগে ব্যারিস্টার সুমনকে কারণ দর্শানোর (শোকজ) নোটিশ দেওয়া হয়। নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির চেয়ারম্যান ও হবিগঞ্জ সদর আদালতের সিনিয়র সহকারী জজ সবুজ পাল রোববার (৩১ ডিসেম্বর) তাকে এই নোটিশ দেন।

নির্বাচনী অনুসন্ধান কমিটির দেওয়া চিঠিতে বলা হয়, আব্দুল হাই প্রিন্স নামের এক ব্যক্তি নিজেকে নৌকা প্রতীকের কর্মী ও সমর্থক দাবি করে অভিযোগ দিয়েছেন। এতে নমুনা পোস্টার সংযুক্ত রয়েছে। নমুনা পোস্টার পর্যালোচনা করে প্রতীয়মান হয় রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালা-২০০৮ এর বিধি ৭ মোতাবেক প্রার্থীর ব্যানার ও পোস্টারে নিজের ছবি, প্রতীক ও দলীয় প্রার্থী হলে একই সঙ্গে দল প্রধানের ছবির বাইরে আর কারও ছবি ব্যবহার করা যাবে না। আপনি পোস্টারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ব্যবহার করে উল্লিখিত বিধি লঙ্ঘন করেছেন। এমতাবস্থায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে ২ জানুয়ারির মধ্যে নিজে অথবা প্রতিনিধির মাধ্যমে নির্বাচনি অনুসন্ধান কমিটির কাছে লিখিত ব্যাখ্যা প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হলো।

মামুন/মাসুদ

ঘটনাপ্রবাহ

আরো পড়ুন  



সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়